আপনার বাড়িটা হোক একটি সৃজনশীল শিল্প কর্ম - খবরের অন্তরালে

জাতীয়

সর্বশেষ সংবাদ

Thursday, 22 August 2019

আপনার বাড়িটা হোক একটি সৃজনশীল শিল্প কর্ম

Design: Eng.fazle Elahi Sabbir
আপনার বাড়িটা যেন শুধুমাত্র মাথা গোঁজার স্থান না হতে পারে, এটি একটা সৃজনশীল শিল্পকর্ম। বর্তমানে ইঞ্জিনিয়ার দিয়ে প্ল্যান করে অনেকে বাড়ি করেছেন। প্লান করে বাড়ি করা অবশ্যই ভালো এতে আপনি আপনার জমির সঠিক মূল্যায়ন করতে পারবেন। প্লান করে বাড়ি করলে ড্রয়িং এ সবকিছুই দেওয়া থাকবে।
তারপরও যদি আপনাদের কারো স্বভাব হয় নিজের বাড়ির প্ল্যানটা নিজেই করবেন তাদের জন্য আজকের এই পোস্ট। বাড়ি করতে মূলত দুইটা ড্রয়িং বেশি গুরুত্বপূর্ণ।
১) স্ট্রাকচার ড্রয়িং (অর্থাৎ বিল্ডিং এর মেইন স্ট্রাকচার বা কাঠামোর ডিজাইন যেখানে মূলত ফাউন্ডেশন এর ডিজাইন,বিম ডিজাইন, কলাম ছাদ ইত্যাদির ডিজাইন )
২) আর্কিটেকচার ড্রয়িং (এটা হল রুমের সাইজ,ওয়াল এর পজিশন, বিভিন্ন রুম কিচেন ইত্যাদি কিভাবে হবে এর নকশা)
সাধারণত একজন অভিজ্ঞ ইঞ্জিনিয়ার দিয়ে স্ট্রাকচার ডিজাইন টা করিয়ে নিবেন। আর্কিটেকচারাল ড্রয়িং এ আপনি আর্কিটেক্ট এর মাধ্যমে ডিজাইন করাতে পারেন তবে এক্ষেত্রে আপনার চাহিদা থাকতে পারে আর সে জন্য বেসিক কিছু বিষয় আপনাকে জানতে হবে।
আর্কিটেকচারাল ড্রয়িং এ আপনি আর্কিটেক্ট এর মাধ্যমে ডিজাইন করাতে পারেন। তবে এক্ষেত্রে আপনারো প্ল্যান ,চাহিদা থাকতে পারে। আর সেজন্য বেসিক কিছু বিষয় আপনাকে জানতে হবে
* বিভিন্ন রুমের আদর্শ এবং সর্বনিম্ন মাপ
* রুমের অবস্থান
* সৌন্দর্য গত দৃষ্টি
* পর্যাপ্ত আলো বাতাস এর সুব্যাবস্থা
* নিরাপত্তা
* ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা
* আপনার এলাকার নিয়ম অনুযায়ী কতটুকু জমি ছেড়ে বাড়ি করতে হবে , তার পরিমাণ ।
+ রুমের সর্বনিম্ন মাপ এবং অবস্থান ।
বেড রুম : নয় ফিট বাই দশ ফিট
অবস্থান : যেদিকে সর্বোচ্চ ন্যাচারাল গিফট পাওয়া যাবে । অর্থাৎ পর্যাপ্ত আলো বাতাস । ব্যালকনি তে বসলে দক্ষিণা বাতাস । তবে সাধারণত একটা বিল্ডিং এর কর্ণার সাইডে বেড রূম দেয়া হয় । এক বেড রুম থেকে আরেক বেড রুমের দূরত্ব বা অবস্থান এমন হবে যেন সম্পূর্ণ প্রাইভেসী বজায় থাকে । অর্থাৎ এক রূমের থেকে অন্য রুমের আভ্যান্তরীন দৃশ্য সহজেই দৃষ্টি গোচর হবে না ।
গেষ্ট রুম : আট ফিট বাই নয় ফিট
অবস্থান : সিঁড়ির কাছাকাছি ।
ডায়নিং : আট ফিট বাই দশ ফিট
অবস্থান :রান্না ঘরের পাশে হলে ভাল হয় ।
বাথরুম +টয়লেট : ছয় ফিট বাই চার ফিট ।
অবস্থান : কমন বাথরুম হলে সবাই যাতে সহজেই ব্যাবহার করতে পারে এমন স্থানে ।
টয়লেটে অবশ্যই এগজস্ট ফ্যান ব্যাবহার করবেন । এটা এয়ার ভেন্টিলেশনের মাধ্যমে টয়লেটের দূর্গন্ধ দূর করার পাশাপাশি আপনার টয়লেট এর ফ্লোর শুকনা রাখবে ।
টয়লেট : তিন ফিট বাই চার ফিট ।
কিচেন : আট ফিট বাই সাত ফিট
অবস্থান : কিচেনে রান্নার সময় রান্নার গ্যাস বা ধোয়া যেন অন্য রুমে প্রবেশ না করতে পারে ।
রান্না ঘরের পরিবেশ ফ্রেস রাখার জন্য, কিচেনেও এগজস্ট ফ্যান ব্যাবহার করা উচিত ।
ব্যালকনি : চওড়া তিন ফিটের কম নয় ।
এগুলো সর্বনিন্ম পরিমাপ এর বড় সাইজের হওয়াই বান্জ্ঞনীয়.।
সিড়ি : আট ফিট চওড়া হলে ভাল হয় অবস্থান : মেইন রাস্তার পাশে অথবা রাস্তা থেকে সর্বনিম্ন দূরত্বে ।
তাহলে মোটামুটি এইসব ধারনা গুলো নিয়ে আপনি একটা বেসিক
প্ল্যান করতে পারেন এবং আর্কিট্যাক্ট এর সাথেও আপনার চাহিদা, প্ল্যান শেয়ার করতে পারেন  ।


ইঞ্জিনিয়ার সাব্বির এলাহীর ফেসবুক ওয়াল থেকে সংগৃহীত।

No comments:

Post a Comment

Home