আসামের কামাখ্যা মন্দিরে নরবলি দেওয়া হল - খবরের অন্তরালে

জাতীয়

সর্বশেষ সংবাদ

Thursday, 25 July 2019

আসামের কামাখ্যা মন্দিরে নরবলি দেওয়া হল

১৯শে জুন ভারতের আসামের গোহাটি কামাক্ষা মন্দিরের পাশে এক নারীর মাথা কাটা দেহ পাওয়া গেছে, অনেকেই আশঙ্কা করছেন নরবলির শিকার হয়েছিলেন ওই নারী। ঘটনাটি খতিয়ে দেখছে স্থানীয় পুলিশ।
দ্য স্ক্রল ডট ইন জানিয়েছে, কামাখ্যা মন্দির আগে থেকেই নানাকারণে বিতর্কিত। স্থানীয়দের মুখে শোনা যায়, তান্ত্রিক চর্চার জন্য বেশ পরিচিত মন্দিরটি।
এইসব চর্চার সঙ্গে প্রায় জুড়ে দেওয়া হয় নরবলির কথা তাই নতুন এই ঘটনা স্থানীয়দের মনে নরবলি হিসেবে বেশ মজবুত হয়ে উঠেছে এমনকি হত্যার সময় বিবেচনাতেও এটি নরবলি হিসেবে ইঙ্গিত দেয় মন্দিরের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ উৎসব অম্বুবাচী মেলার ঠিক আগ দিয়ে খুন হয়েছেন ওই নারী লাসের পাশে রাখা হয়েছে প্রয়োজনীয় পূজার জিনিসপত্র।
উল্লেখ্য, আম্বুবাচি মেলায় ওই মন্দিরে যোগ দেন অগণিত পূজারি ও সন্যাসী। এটি একটি বার্ষিক মেলা। হিন্দুদের বিশ্বাস অনুসারে দেবি কামাখ্যার ঋতুস্রাবের সময়কে উদযাপন করতে এর আয়োজন করা হয়।
প্রচলিত ধারণা অনুসারে, বছরের এই সময়েই ঋতুস্রাব হয়ে থাকে দেবি কামাখ্যার। ওই সময় পুরো মন্দির বন্ধ করে রাখা হয়। ধর্মীয় বিশ্বাস অনুসারে, দেবি কামাখ্যা তখন অপবিত্র থাকেন। তারা আরো বিশ্বাস করে দেবির ঋতুস্রাবের অপবিত্র রক্ত হচ্ছে জীবন ও জীবনীশক্তির অগ্রদূত। বন্ধ থাকার পর মন্দিরটি যখন ফের খুলে দেয়া হয় তখন দেবির পূজারিদের মধ্যে লাল কাপড় বিতরণ করা হয়। কাপড়টি দেবির রক্তের নিদর্শন হিসেবে দেখা হয়। সাধারণত তিন দিন পরই মন্দির খুলে দেয়া হয়। মন্দির কর্তৃপক্ষ জানায়, নরবলি কখনোই আম্বুবাচি মেলার অংশ ছিল না। মন্দিরটি পরিচালনা করেন ‘কামাখ্যা বরদেউরি সমাজ’ নামের একটি পারিবারিক দাতব্য সংস্থার সদস্যরা। দাতব্য সংস্থাটির এক সদস্য রাজিব শর্মা বলেন, বহু বছর ধরে কোনো নরবলির ঘটনা ঘটেনি। আগে কেবল দুর্গা পূজার সময় নরবলি দেয়া হতো।

No comments:

Post a Comment

Home