দেশে স্মার্টফোনের দাম হবে দ্বিগুণ! - খবরের অন্তরালে

জাতীয়

সর্বশেষ সংবাদ

Monday, 24 June 2019

দেশে স্মার্টফোনের দাম হবে দ্বিগুণ!

বর্তমান বাজেটে স্মার্ট ফোন আমদানিতে শুল্ক ১৫ শতাংশ বাড়ানো হয়েছে এতে মোট কর দাঁড়িয়েছে ৫৭ শতাংশের বেশি। ব্যবসায়ীদের আশঙ্কা এতে স্মার্টফোনের প্রায় দ্বিগুণ দাম হয়ে যাবে। এ নিয়ে প্রথম আলোর সঙ্গে কথা বলেছেন বাংলাদেশে মোবাইল ফোন ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মোঃ নিজাম উদ্দিন।
প্রথম আলো: স্মার্টফোন নতুন সুখ বাজারে কি প্রভাব ফেলবে?

এতে সাধারণ মানুষের গুণগত মানসম্পন্ন স্মার্টফোনের স্বপ্ন আর পূরণ হবে না অন্যদিকে অবৈধ আমদানি বাড়বে এখন অনেক মানুষ কেনাকাটা করতে ভারতে যান কেউ যদি ভালো একটি স্মার্টফোন কিনতে চান তাহলে বাংলাদেশের যেটা দাম পড়বে ৫০হাজার টাকা সেটা ভারতে পড়বে ৩০ হাজার টাকার মতো ফলে ৫০হাজার টাকার ফোন ভারত থেকে ৩০ হাজার টাকায় কিনতে পারবেন আবার বাকি ২০ হাজার টাকায় ঘুরে আসতে পারবেন।

প্রথম আলো: দাম কতটুকু বাড়তে পারে?
বিদেশে যেয়ে ফোনটির দাম ১০ হাজার টাকা সেটি দেশে ২০ হাজার টাকা ছাড়িয়ে যাবে একদিকে কর এর কারণে দাম অনেক বেড়ে যাবে পাশাপাশি বিক্রি কমে যাবে এতে দোকান মালিকেরা ইউনিট প্রতি লাভ বাড়িয়ে বিক্রি করতে বাধ্য হবেন সব মিলিয়ে দাম দ্বিগুণ হবে।

প্রথম আলো সরকার তো বলছে দেশীয় শিল্পকে সুরক্ষা দিতে কর বাড়ানো হয়েছে?

দেশে মুঠোফোন কারখানা করার পক্ষে আমরাই প্রথম কথা বলা শুরু করেছিলাম আমরা চাই দেশে কারখানা হোক কিন্তু কথা হলো এখনো এত বেশি শুল্কারোপ এর সময় হয়নি অনেক ব্র্যান্ডেই এখানে কারখানা করতে চায় কিন্তু হুট করে সেটা হয় না এখন যে শুল্ক কাঠামো তাতে বেশ কিছু বড় বিনিয়োগ পরিকল্পনা বাদ দিয়ে বাংলাদেশ ছাড়বে।
প্রথম আলো: তাহলে আপনারা কি চান?
কর নীতির ক্ষেত্রে দেশীয় শিল্পের কথা যেমন বিবেচনা করতে হবে তেমনি ভোক্তার কথাও মাথায় রাখা উচিত আবার দেশীয় ব্যবসায়ীদের কথা বিবেচনা করতে হবে এ কারণে শুল্কহার হতে হবে ভারসাম্যপূর্ণ দেশে যে কয়টা কারখানা হয়েছে তারা সামান্য কয়েকটি মডেল নিয়ে কাজ করে দেশে কিন্তু শত শত মডেলের স্মার্টফোন আমদানি হয় ব্যবসার সঙ্গে প্রচুর মানুষ জড়িত তাদের জীবন জীবিকার কথা মাথায় রাখতে হবে
প্রথম আলো: দেশীয় কারখানা কি কোন সুবিধা পায়?
এক সময় কাঁচামাল আমদানিতে ৫০% করছিল এখন সেটা নগণ্য পর্যায়ে নামিয়ে এনেছে সরকার আমরা স্বাগত জানাই দেশের কারখানাগুলো এখন মাত্র বাজারের চাহিদার ১০% স্মার্টফোন সরবরাহ করতে পারে তাদের জন্য ৩২শতাংশের মতো সুরক্ষা ছিল তারা কর অবকাশ সুবিধা পায় মনে রাখতে হবে বেশি সুরক্ষা কোন শিল্পকে প্রতিযোগিতায় সক্ষম হিসেবে গড়ে তোলে না।

No comments:

Post a Comment

Home