রামগঞ্জের যে রাস্তাটিতে এখন পর্যন্ত ইট বালুর ছোঁয়া লাগেনি - খবরের অন্তরালে

জাতীয়

সর্বশেষ সংবাদ

Sunday, 16 June 2019

রামগঞ্জের যে রাস্তাটিতে এখন পর্যন্ত ইট বালুর ছোঁয়া লাগেনি

লক্ষীপুরের রামগঞ্জে পুরো উপজেলাজুড়ে যে কয়টি রাস্তা সবচেয়ে অবহেলিত তার মধ্যে এই রাস্তাটি অন্যতম। স্বাধীনতার পর থেকে এখন পর্যন্ত এই রাস্তাটি কে কখনোই পাকা বা সলিং করার উদ্যোগ নেয়নি কোন সরকারের পক্ষ থেকে। প্রত্যেকটি সরকারের আমলেই ছিল এই রাস্তাটি অবহেলিত। অথচ জনবহুল তিনটি বৃহৎ গ্রামের জনসাধারণের চলাচল এই রাস্তা দিয়ে।

এতক্ষণ যে রাস্তাটির গুনগান গাওয়া হলো সে রাস্তাটির অবস্থান কোথায়?অবস্থান রাস্তাটির পৌর নন্দন পুরের হাজী বাড়ির ব্রিজের গোড়া থেকে শুরু করে ভাদুর ইউনিয়নের চাঁদপুর গ্রামের বেপারী বাড়ির মসজিদ পর্যন্ত। রাস্তাটির মধ্যভাগ থেকে একটি অংশ চাঁদপুর গ্রামের ক্বারী সাহেবের বাড়ি হয়ে ডাক্তার বাড়ির সামনে দিয়ে কাজী বাড়ির সামনে এরশাদ হোসেন রোড পর্যন্ত।
স্বাধীনতার দীর্ঘ এতগুলো বছর পার হয়ে গেলেও এই রাস্তাটি কে  সলিংক করা অথবা পাকা করার কোন উদ্যোগ নেয়নি কখনোই। বিগত বিএনপি সরকারের আমলে পুরো রামগঞ্জ উপজেলা যখন উন্নয়নের জোয়ারে ভাসছিল ঠিক তখনই ছিল এই রাস্তাটি অবহেলিত। প্রতিবছর সংস্কারের নামে আশে পাশ দিয়ে সামান্য কিছু মাটি পেলে রাস্তাটিকে সংস্কার করা হয়। আবার বর্ষার মৌসুমে ঝড়-বাদলে রাস্তাটি কদম আড্ডা এবং চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ে তার উপর চলাচল করে অবৈধভাবে ট্রলি যার কারনে এই রাস্তাটি সব সময় থাকে যানবাহন রিক্সা চলার অনুপযুক্ত।
অনুসন্ধানে জানা যায় কেন দীর্ঘ এত বছর থেকে এই রাস্তাটি পাকা করার উদ্যোগ নেয়নি কোন সরকার! রাস্তাটির দক্ষিণ এবং পশ্চিম পাশে কাজিরখিল ও নন্দনপুর গ্রাম এই দুইটি গ্রাম পৌরসভার আওতাধীন। অপরদিকে পূর্ব পাশে ভাদুর ইউনিয়নের চাঁদপুর গ্রাম উত্তর দিকে পশ্চিম ভাদুর। চারটি গ্রামের সীমান্ত হওয়ায় কোন গ্রামের জনপ্রতিনিধিরা রাস্তাটি কে পাকা করার উদ্যোগ নেয়নি বলে জানিয়েছেন কয়েকজন গ্রামবাসী। অথচ ভাদুর ইউনিয়নে সব থেকে বেশি উপজেলার হায়ার লেভেলের জনপ্রতিনিধিদের বাসস্থান। তারপরেও উক্ত রাস্তাটি অবহেলিত রয়ে গেছে দীর্ঘদিন থেকে।

উক্ত রাস্তার পাশের বাসিন্দাদের আহবান যেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা এ রাস্তাটি কে অতি শীঘ্রই পাকা করার ব্যবস্থা করেন সে আহ্বান জানিয়েছেন তারা। প্রকাশ না করার শর্তে একজন এলাকাবাসী বলেন বর্তমান এমপি জনাব আনোয়ার হোসেন খান পুরো রামগঞ্জ উপজেলার সকল রাস্তাঘাট নির্মাণ সংস্কার করার উদ্যোগ নিয়েছেন তাকে আমরা সাধুবাদ জানাই আশা করি আপনাদের লেখনীর মাধ্যমে জনপ্রতিনিধির কাছে এই রাস্তাটি সম্পর্কে খবর পৌঁছবে বলে আমাদের বিশ্বাস। তাই যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এই রাস্তাটি কে পাকা রাস্তা করে উক্ত রাস্তার আশেপাশে যে কয়েকটি গ্রাম সেই গ্রাম গুলোর মানুষের চলাচলের সুব্যবস্থা করবেন বলে আমরা আশা রাখি।

No comments:

Post a Comment

Home