চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চনের পিস্তল নিয়ে বিমান বন্দরে প্রবেশ এর ভিডিও প্রকাশ - খবরের অন্তরালে

জাতীয়

সর্বশেষ সংবাদ

Thursday, 7 March 2019

চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চনের পিস্তল নিয়ে বিমান বন্দরে প্রবেশ এর ভিডিও প্রকাশ

ঢাকা বিমানবন্দরে চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চনের ব্যাগ স্ক্যানিংয়ের ভিডিও প্রকাশ হয়েছে। বৃহস্পতিবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভিডিওটি প্রকাশ করা হয়। গত মঙ্গলবার এই ভিডিওটি ধারণ করা হয়।
ভিডিওতে দেখা যায় চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন একটি ট্রেতে তার ল্যাপটপ ও মোবাইল রাখছে। অপরটিতে একটি কালো ব্যাগ রাখছেন।পরে স্ক্যানিং মেশিনে ল্যাপটপের ট্রে ও ব্যাগের ট্রেটি স্ক্যানিং মেশিনে প্রবেশ করা হয়। কিছুক্ষণ পরে কালো কোট পরা একজন নিরাপত্তাকর্মী কালো ব্যক্তি নিয়ে আসেন। এ সময় নিরাপত্তা কর্মীর সাথে বেশ কিছুক্ষণ ইলিয়াস কাঞ্চনের কথোকপতন হয়।

ইলিয়াস কাঞ্চন ছবি: ইন্টারনেট

পরে কাল ব্যাগটি নিয়ে ইলিয়াস কাঞ্চন নিরাপত্তায় রাখা ত্যাগ করেন। ইলিয়াস কাঞ্চন গণমাধ্যমকে বলেন ভুলক্রমে অস্ত্র ব্যাগে নিয়ে তিনি ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে চলে গিয়েছিলেন। ল্যাপটপ ব্যাগের ভিতরে তার অস্ত্রটি ছিল বলে তিনি জানিয়েছেন। তিনি বলেন আমি ভুলে গিয়েছিলাম যে ব্যাগের মধ্যে অস্ত্র ছিল।

  ঢাকা বিমানবন্দরে প্রাথমিক নিরাপত্তা পরীক্ষার সময় তার সঙ্গে থাকা অস্ত্র স্ক্যানার মেশিন এ ধরা পড়েনি। হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের অভ্যন্তরীণ টার্মিনালে ৯ এম এম পিস্তল ও ১০ রাউন্ড গুলি ধরা না পড়ার ঘটনা নিয়ে তুমুল আলোচনা-সমালোচনা হচ্ছে। এই ঘটনার জের ধরে একজন স্ক্যানার অপারেটরকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে এবং তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন বিমান বন্দর কর্তৃপক্ষ।
অন্যদিকে বৃহস্পতিবার বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় জনসংযোগ কর্মকর্তা তানভীর আহমেদ-এর পাঠানো এক বার্তায় দাবি করা হয় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পিস্তলসহ নিরাপত্তা তল্লাশি পেরিয়ে যাওয়া নিয়ে চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন যে বক্তব্য দিয়েছেন তা সম্পূর্ণ অসত্য।
গণমাধ্যমে পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয় চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন পিস্তল ও গুলি হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অভ্যন্তরীণ টার্মিনালের ধরা না পড়ার প্রসঙ্গে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে বলেছেন ব্যাগে থাকা লাইসেন্স করা পিস্তল টি বাসায় রেখে আসতে ভুলে যায়। এরই মধ্যে বিমান বন্দরে প্রবেশ গেটে ব্যক্তি তল্লাশি করা হয়। নভোএয়ার এর বোর্ডিং কাউন্টারে এসে ব্যাগে থাকা পিস্তলের কথা মনে পড়ে। ব্যাগে থাকা পিস্তলটি স্ক্যানিং মেশিনে ধরা না পড়ায় আমি অবাক হই। তখন সাথে সাথে আমি বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষকে অবহিত করি।তাৎক্ষণিকভাবে শাহ জালাল বিমান বন্দরের কর্তৃপক্ষ আমার কাছে দুঃখ প্রকাশ করে। ইলিয়াস কাঞ্চন আরো বলেন প্রথম স্ক্যানার পার হওয়ার পর মনে পড়ায় আমি তাদের কাছে গিয়েছি। ক্যানোস্ক্যান আরে এই বিষয়টি ধরা পড়েনি তা নিয়ে আমি তাদের কাছে অভিযোগ করেছি।
বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয় সত্য কিন্তু হচ্ছে এই যে ঘটনার বিষয়ে ইলিয়াস কাঞ্চন নিজের ভাবমূর্তি রক্ষার্থে সংবাদ মাধ্যমে অন্যায় ভাবে একের পর এক  অসত্য ও মিথ্যা কথা বলে যাচ্ছেন।প্রকৃতপক্ষে ঐদিন হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের অভ্যন্তরীণ টার্মিনালে যা ঘটেছে তা হল ইলিয়াস কাঞ্চনের ল্যাপটপ ব্যাগে থাকা পিস্তল ও গুলি হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের অভ্যন্তরীণ টার্মিনালের এন্টি হ্যাইজাকিং টোয়েন্টি স্ক্যানিং করার সময় তা মেশিনে শনাক্ত হয়। বিমানবন্দরের কর্মকর্তারা এ বিষয়ে তার কাছে জানতে চাইলে তিনি তার ভুল স্বীকার করেন।তখন নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তারা তাকে বিমানবন্দরের যথাযথ প্রক্রিয়া অনুসরণ করে পিস্তলটি বহন করার জন্য অনুরোধ করলে তিনি ওই স্থান থেকে ফেরত যান। পরবর্তীতে তিনি যথাযথ প্রক্রিয়া অনুসরণ করে বিমান বিমানে করে চট্টগ্রামে যান।

No comments:

Post a Comment

Home