স্বাধীনতা দিবসের ফুল দেওয়ার সময় বিএনপি নেতাদের উপর হামলা - খবরের অন্তরালে

জাতীয়

সর্বশেষ সংবাদ

Tuesday, 26 March 2019

স্বাধীনতা দিবসের ফুল দেওয়ার সময় বিএনপি নেতাদের উপর হামলা

ছবিঃ বাংলাদেশ জার্নাল 

ফরিদপুরে স্বাধীনতা দিবসের প্রথম প্রহরে শহীদ বেদীতে ফুল দিয়ে ফেরার পথে দুর্বৃত্তদের হামলার শিকার হয়েছেন বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের ১৪নেতাকর্মী মঙ্গলবার সকাল সাড়ে আটটার দিকে শহরের গোয়ালচামট এলাকায় এই হামলার ঘটনা ঘটে।

ধারালো অস্ত্রের আঘাতে জখম হয়েছেন জেলা বিএনপি'র সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মোদারেস আলী ইছা। জেলা বিএনপি'র যুগ্ন সম্পাদক স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক সৈয়দ জুলফিকার হোসেন জুয়েল জেলা যুবদলের সাবেক সাধারন সম্পাদক একে কিবরিয়া স্বপনসহ সংগঠন টির ১৪ নেতাকর্মী।
আহতদের মধ্যে জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক ও জেলা বিএনপি'র যুগ্ন সম্পাদক সৈয়দ জুলফিকার হোসেন জুয়েল গুরুতর আহত হয়েছেন তার মাথায় দুটি বড় আকারের জখম হয়েছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা প্রথমে জুয়েল ফরিদপুরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয় পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়। আহত জুয়েলের বড় ভাই সৈয়দ ফরহাদ হোসেন বলেন জুয়েলের মাথায় দুটি এবং শরীরের বিভিন্ন স্থানে আরও তিনটি কোপ লেগেছে তার অবস্থা গুরুতর।

জেলা বিএনপি'র সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আলী ও জেলা যুবদলের সাবেক সাধারন সম্পাদক কে এম কিবরিয়া স্বপন আহত অবস্থায় বাসায় চিকিৎসাধীন আছেন। এছাড়া জেলা বিএনপি'র সহ-প্রচার সম্পাদক দিদার হোসেন পৌর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি লিটন বিশ্বাস ছাত্রদল সরকারি ইয়াসিন কলেজের সাবেক জিএস আল-আমিন তুষার জেলা যুবদলের প্রচার সম্পাদক সিদ্দিকুর রহমান সেন্টু কোষাধক্ষ্য ইলিয়াস হোসেন মোল্লা শ্রমিক দলের বিল্লাল তালুকদার সহ আরও ৫ জন নেতাকর্মী এই হামলায় আহত হয়েছেন।
ফরিদপুর জেলা বিএনপি'র নেতা-কর্মীরা অভিযোগ করে বলেন সকাল সাড়ে সাতটার দিকে তারা স্বেচ্ছাসেবক দলের ব্যানারে মিছিল সহযোগে শহীদ বেদীতে পুষ্পার্ঘ অর্পণ করেন সেখান থেকে ফেরার পথে ছাত্রলীগ-যুবলীগের সদস্যরা অতর্কিত তাদের উপর হামলা চালায়। স্বেচ্ছাসেবক দলের ওই মিছিল ফরিদপুর জেলা বিএনপি'র সহ-প্রচার সম্পাদক দিলদার হোসেন। ঘটনার বিবরণ দিয়ে দিলদার হোসেন জানান সকালে শহীদ বেদীতে ফুল দিয়ে ফেরার পথে জামান সাহেবের পেট্রোল পাম্পের সামনে এলে ৭/৮ জন যুবক প্রথমে তাদের ব্যানার কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করে এর পরে পিছন থেকে হকি স্টিক ও লাঠিসোটা দিয়ে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে উপর্যুপরি কুপিয়ে রক্তাক্ত করে। সময় পুরো এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

অন্যদিকে বিএনপির আরেকটি অংশ একে কিবরিয়ার নেতৃত্বে শহরের গোয়ালচামট এলাকার হাজার তলার মোড়ে হামলার শিকার হন। সেখানেই লাঠি ও হকি স্টিক দিয়ে কিবরিয়াসহ কয়েকজনকে আহত করা হয় তারা শহীদ বেদীতে ফুল দিতে পারেনি। এই হামলার মুখে যুবদলের একটি মিছিল শহীদ বেদীতে ফুল না দিয়ে ফেরার পথে পূর্ব খাবাসপুর জোড়া সেতুর নিকট হামলার শিকার হয়। সেখানে জেলা বিএনপি'র সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মোদারেস আলী সহ কয়েকজন আহত হয়। জেলা বিএনপি'র ব্যানারে সাংগঠনিক সম্পাদক রশিদুল ইসলাম এর নেতৃত্বে একটি অংশ ভাঙ্গা রাস্তার মোড়ে জড়ো হয়ে শহীদ বেদীতে ফুল দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছিলেন হামলার মুখে তারাও দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন।

হামলায় আহত বিএনপি'র নেতাকর্মীরা জানান রক্তাক্ত অবস্থায় তারা ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ফরিদপুর জেনারেল হাসপাতাল এবং বিভিন্ন বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন অস্ত্রধারীদের হামলার পর তারা এখন গ্রেফতার আতঙ্কে আত্মগোপনে রয়েছেন। আহত জেলা বিএনপি'র সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মোদারেস আলী জানান ১২ থেকে১৪ জনের একটি দল অতর্কিতভাবে কোনো কিছু বুঝে উঠার আগেই ধারালো অস্ত্র ও লাঠিসোটা দিয়ে হামলা চালায়।
তিনি অভিযোগ করে বলেন আহত অবস্থায় আমাদের নেতাকর্মীরা কোন হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে সাহস পাচ্ছেন না। আমরা এই হামলার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।  থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এ এফ এম নাসিম বলেন শহীদ বেদীর নিকটে ভাঙ্গা রাস্তার মোড় এলাকায়  হামলার শিকার হওয়া বিএনপির তিন নেতা ফরিদপুর মেডিকেল হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নিয়ে চলে গেছেন। স্লোগান ও পাল্টা স্লোগান দেওয়া নিয়ে এ হামলার ঘটনা ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে এই ঘটনায় বিকেল সাড়ে তিনটা পর্যন্ত কোন মামলা হয়নি অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন পুলিশের এই কর্মকর্তা।

No comments:

Post a Comment

Home