চুরি ডাকাতি ঠেকাতে লাঠি বল্লম নিয়ে পাহারা গ্রামবাসীর - খবরের অন্তরালে

জাতীয়

সর্বশেষ সংবাদ

Tuesday, 12 March 2019

চুরি ডাকাতি ঠেকাতে লাঠি বল্লম নিয়ে পাহারা গ্রামবাসীর

রাত তখন এগারোটার মত গ্রামের লোকজন লাঠি চার্জ লাইট নিয়ে একজন একজন করে আসতে শুরু করলেন দলে দলে বিভক্ত হয়ে গ্রামের রাস্তা সহ বিভিন্ন স্থানে অবস্থান নিয়ে শুরু করেছেন পাহারা দেওয়ার কাজ।
গ্রামের ভিতরে অপরিচিত কাউকে তাহারা দেখলেই ঘিরে ধরেন অপরিচিত হলে লিখে রাখছেন তাদের নাম ও ঠিকানা। প্রতি রাত্রে এই এখন এরকম চিত্র।
পাহারারত গ্রামবাসী। ছবিঃ ইন্টারনেট

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া পৌর এলাকার উত্তর ইউনিয়ন সহ প্রতিটি ইউনিয়নের গ্রামে গ্রামে। এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায় গত এক সপ্তাহে পৌর এলাকার দুর্গাপুর ও এর একদিন আগে উপজেলার উত্তর ইউনিয়নের চানপুর গ্রামে জলিল মিয়ার বাড়িতে দুর্ধর্ষ ডাকাতি সংঘটিত হয়। সঙ্ঘবদ্ধ ডাকাতরা অভিনব কায়দায় কলাপসিবল গেইটের তালা এবং ঘরের দরজা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করে অস্ত্রের মুখে পরিবারের সদস্যদের কে জিম্মি করে নগদ টাকা স্বর্ণালঙ্কার ও মোবাইলসহ অন্তত ১৪ লাখ টাকার মালামাল লুটে নিয়ে যায়।

তাছাড়াও প্রতি রাতে এই ইউনিয়নের কোন না কোন স্থানে ডাকাতরা হানা দিচ্ছে। গ্রামের মধ্যে ঢাকাতেই আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। গ্রামের চুরি আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ায় বাধ্য হয়ে জান মাল রক্ষায় চুরি ডাকাতি ঠেকাতে সভা করে সমন্বয়ের মাধ্যমে প্রতি রাতে দলবেঁধে পাহারা দেওয়া শুরু করেছেন।

উত্তর ইউনিয়নের আদমপুর চাঁদপুর ও পৌর শহরের দুর্গাপুর শ্যামপুর এলাকায় গিয়ে দেখা যায় সাধারণ মানুষের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে গ্রামবাসীর সম্মিলিত প্রচেষ্টায় ছাত্র-যুবক বিভিন্ন শ্রেণী পেশার লোকজন ছুটে আসছেন পাহারা দেওয়ার জন্য। দলে দলে বিভক্ত হয়ে লাঠি-বাঁশি নিয়ে রাস্তায় ঘোরাফেরা করেছেন গ্রামের মানুষ প্রতিটি দলে থাকছেন ১০ থেকে ১২ জন সদস্য রাত ১১ টা থেকে ভোর চারটা পর্যন্ত পাহারা দেওয়া হয়।  চুরি ডাকাতির খবর পাওয়া মাত্রই হই হুল্লোর শুরু হয়ে যায়।

শ্যামপুর গ্রামের প্রবাসীর স্ত্রী শামীমা আক্তার বলেন চুরি ডাকাতি বৃদ্ধি পাওয়ায় রাতে ঘুম হয় না সন্ধ্যা হলে আতঙ্কে থাকতাম গ্রামের লোকজন রাত জেগে পাহারা দেওয়ার এখন আর আতঙ্ক নেই এখন গ্রামবাসীর মধ্যে স্বস্তি ফিরে আসতে শুরু করেছে বলে জানিয়েছেন তিনি।  আখাউড়া উত্তর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মোঃ আব্দুস সাত্তার বলেন গত এক মাসের ব্যবধানে আমাদের এলাকায় বেশ কয়েকটি বাড়িতে চুরি ডাকাতি হয়েছে এতে এলাকাবাসীর আতঙ্ক বিরাজ করছে। চুরি ডাকাতি রোদে এলাকার জনগণ রাতের বেলায় পাহারা দিচ্ছে অন্তত ৫০ জন যুবক বিভিন্ন ভাগে ভাগ হয়ে রাস্তায় মোড়ে মোড়ে পাহারা থাকেন।

আখাউড়া পৌরশহরের ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ তাজুল ইসলাম বলেন চুরি-ডাকাতির এলাকার যুবকেরা রাত জেগে পাহারা দিচ্ছে রাত ১০ টা থেকে ভোর পাঁচটা পর্যন্ত পাহারা দেওয়া হয় যতদিন পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হবে ততদিন পাহারা দেওয়া হবে।

আখাউড়া উত্তর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল মান্নান ভূঁইয়া স্বপন বলেন চুরি-ডাকাতি রোধে ইউপি সদস্য স্থানীয় রাজনৈতিক নেতা গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ গ্রামের লোকদের কে নিয়ে বৈঠক করে রাত জেগে পাহারা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় স্থানীয় প্রশাসনকে জানানো হয়েছে। এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে আখাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ রসূল আহমেদ নিজামী বলেন আমি মাত্র সপ্তাহখানেক আগে আখাউড়া যোগদান করেছি মাদক প্রতিরোধে এলাকার জনগণকে নিয়ে ইতিমধ্যে বেশ কয়েকটি সভা করেছি তাছাড়া চুরি-ডাকাতি রোদে পুলিশ ও দায়িত্ব পালন করছে। এলাকার শান্তিশৃঙ্খলা বজায় রাখতে যা যা করা দরকার তার সব কিছুই আমরা করব বলে জানিয়েছেন ওসি।

No comments:

Post a Comment

Home