হিরো আলম গ্রেফতার! জেল হাজতে প্রেরণ - খবরের অন্তরালে

জাতীয়

সর্বশেষ সংবাদ

Thursday, 7 March 2019

হিরো আলম গ্রেফতার! জেল হাজতে প্রেরণ

যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে মারধরের অভিযোগে গ্রেফতার হলেন আশরাফুল ইসলাম হিরো আলম। হিরো আলমকে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। আজ বৃহস্পতিবার দুপুর মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বগুড়া সদর থানার উপ-পরিদর্শক আব্দুর রহিম হিরো আলমকে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করেন।
হিরো আলম। ছবি ফেসবুক

আদালতে শুনানি শেষে বিচারক শাহরিয়ার তারেক হিরো আলমকে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।বুধবার দুপুরে হিরো আলমের স্ত্রী সাদিয়া বেগম বাবা সাইফুল ইসলাম খোকন যৌতুক ও নির্যাতনের অভিযোগে সদর থানায় মামলা করেন। ওই মামলায় রাত সাড়ে দশটায় বগুড়া সদর থানা পুলিশ হিরো আলমকে গ্রেপ্তার করে। হিরো আলমের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলায় বাদী সাইফুল ইসলাম উল্লেখ করেন তার মেয়ে সুমি বেগম কে ১১ বছর আগে বগুড়া সদরের ওই গ্রামের আব্দুর রাজ্জাকের পালিত ছেলে আশরাফুল ইসলাম ওরফে হিরো আলমের সঙ্গে বিয়ে দেন। তাদের সংসারের দুই মেয়ে ও এক ছেলে রয়েছে।
বিয়ের পর থেকে হিরো আলম তার স্ত্রীর কাছে দুই লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে আসছিলেন।মেয়ের সুখের কথা বিবেচনা করে গত বছরের 25 শে ডিসেম্বর হিরো আলম কে তিনি এক লাখ টাকা দেন। বাকি আরো এক লাখ টাকার জন্য হিরো আলম তার স্ত্রীকে মারধর ও নির্যাতন করতেন। গত 5 ই মার্চ হিরো আলম যৌতুকের দাবিতে স্ত্রী সুমি বেগম কে বেদম মারধর করেন। পরে তাকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
বগুড়া সদর থানার অফিসার ইনচার্জ এস এম বদিউজ্জামান জানান বৃহস্পতিবার হিরো আলমকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। আদালতে হিরো আলমের পক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট মাসুদার রহমান স্বপন। তিনি হিরো আলমের জামিন আবেদন করলে আদালত তার আবেদন নামঞ্জুর করে হিরো আলমকে জেলহাজতে প্রেরণ করার নির্দেশ দেন। এডভোকেট স্বপন জানান নিম্ন আদালতে ওই মামলায় হিরো আলমের জামিন না দেওয়ায় উচ্চ আদালতে জামিনের আবেদন করা হবে।বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন হিরো আলমের স্ত্রী সাদিয়া বেগম জানান দুই মাস পর গত সোমবার রাতে হিরো আলম বগুড়া শহরতলির এরুলিয়া গ্রামের বাড়িতে আসেন।বাসায় আসার পর এক টানা তিনঘন্টা হিরো আলম ঢাকার এক মেয়ের সাথে মোবাইলে কথা বলেন। হিরো আলমের স্ত্রী এর প্রতিবাদ করলে তাকে বেদম প্রহার করা হয়। তিনি অভিযোগ করে বলেন হিরো আলম ঢাকায় দ্বিতীয় বিয়ে করেছে। এ কারণে বগুড়ায় থাকায় তার স্ত্রী ও সন্তানদের খোঁজ খবর রাখেন না।  এবং সংসার খরচ দেন না এর প্রতিবাদ করার আগেও তাকে শারীরিক নির্যাতন করেছেন হিরো আলম ওরফে শামসুল আলম।
হিরো আলম এর শ্বশুর সাইফুল ইসলাম জানান মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর তার মেয়েকে আবারো নির্যাতন করছে খবর পেয়ে মেয়ের বাড়িতে যান। সেখানে গিয়ে মেয়েকে উদ্ধার করে রাতে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করে।মারধরের কারণে তার মেয়ের মাথার পিছনে যখন পেয়েছে বলে তিনি উল্লেখ করেছেন।এই জন্যই তিনি যৌতুক ও নারী নির্যাতন আইনে হিরো আলমের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে। এর আগে মঙ্গলবার হিরো আলম তার শশুর ও স্ত্রীর বিরুদ্ধে তাকে মারধোর করার জন্য থানায় মামলা দায়ের করেছে। প্রাথমিক তদন্তে এর কোনো সত্যতা পায়নি পুলিশ। এর কারণে মামলা হিসেবে রযু করেননি বগুড়া থানার পুলিশ।
খবর দৈনিক দেশ রূপান্তর।

No comments:

Post a Comment

Home