বঙ্গবন্ধুর নিরানব্বই তম জন্মবার্ষিকী পালিত - খবরের অন্তরালে

জাতীয়

সর্বশেষ সংবাদ

Saturday, 16 March 2019

বঙ্গবন্ধুর নিরানব্বই তম জন্মবার্ষিকী পালিত

স্বাধীন বাংলার স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৯ তম জন্ম বার্ষিকী উপলক্ষে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা।
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।

রবিবার সকালে ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরের সামনে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন প্রথমে প্রধানমন্ত্রী হিসাবে পরে আওয়ামী লীগের সভানেত্রী হিসেবে দলের নেতাকর্মীদেরকে নিয়ে আবারো বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা নিবেদনের পর আওয়ামী লীগ এবং তার অঙ্গ সংগঠন ও বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।
এর আগে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সকাল সাড়ে ছয়টায় রাজধানীর বঙ্গবন্ধু ভবন এবং দেশব্যাপী দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করে। এই উপলক্ষে আজ সরকারি আধা সরকারি বেসরকারি সহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠান সরকারি ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে।
বঙ্গবন্ধুর শততম জন্মদিন আজ। তার ৯৯ তম জন্মবার্ষিকীতে রাষ্ট্রীয়ভাবে এবং বিভিন্ন রাজনৈতিক সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন রয়েছে নানা আয়োজন।
ইতিহাসের পাতার পিছনে ফিরে তাকালে দেখা যায় ১৯৪৭ সালে ব্রিটিশ শাসন থেকে স্বাধীনতা লাভের পর পরই ঢাকায় ফিরে নতুন রাজনৈতিক চিন্তাচেতনা নিয়ে ১৯৪৮ সালের ছাত্রলীগ গঠন করেন শেখ মুজিবুর রহমান। ১৯৪৮ থেকে ১৯৫২ এর মহান ভাষা আন্দোলন ১৯৫৮ এর আইয়ুব খানের সামরিক শাসন বিরোধী আন্দোলন ১৯৬২ এর শিক্ষা আন্দোলন এবং পরবর্তী সময়ে আওয়ামী লীগ প্রধান হিসেবে ১৯৬৬ এর ঐতিহাসিক ছয় দফা সাহিত্য শাসন আন্দোলনের আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলায় কারারুদ্ধ হন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।

বায়ান্নর ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে ষাটের দশকে বঙ্গবন্ধু হয়ে উঠলেন বাঙালির জাতির অদ্বিতীয় নেতা। যার ১৯৬৭ এর ঐতিহাসিক গণঅভ্যুত্থানের মধ্য দিয়ে ছাত্রজনতা তাকে বঙ্গবন্ধু উপাধি দেয়। ১৯৭০ নির্বাচনে বাঙালি বঙ্গবন্ধুর ছয় দফার পক্ষে জানা অকুণ্ঠ সমর্থন। ১৯৭০ সালের ঐতিহাসিক নির্বাচনে জয়ের মধ্য দিয়ে শেখ মুজিব বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতায় পরিণত হন। বাংলাদেশের মুক্তিসংগ্রামের প্রতিটি অধ্যায়ে বঙ্গবন্ধুর নাম চির অম্লান। ১৯৭১ সালের ৭ মার্চ তৎকালীন রেসকোর্স ময়দানে তার ঐতিহাসিক ভাষণকে ইউনেস্কো বিশ্ব প্রামাণ্য ঐতিহ্য হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে।

হাজার ১৯৭১ সালের ২৬ শে মার্চের প্রথম প্রহরে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর হাতে গ্রেফতার হওয়ার আগে তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণা দেন।

No comments:

Post a Comment

Home